নওগাঁয় মাদক উদ্ধারের ঘরটি কমিশনার মজনুর নয় ; গভীর জড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি

নওগাঁ শহরের চাল বাজার এলাকায় মাদক উদ্ধারের অফিস ঘরটি পৌর কমিশনার শেখ মোজাম্মেল হক মজনুর নয় বলে জানিয়েছেন তিনি। একটি কুচক্রী মহল সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে সংবাদকর্মীদের কাছে মিথ্যে তথ্য দিয়েছেন বলে দাবি করছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিকদের কাছে এই দাবি করেছেন পৌর সভার ৫নং ওয়ার্ডের কমিশনার শেখ মোজাম্মেল হক মজনু। তিনি জানান, ওই ঘরটি পৌরসভার কিচেন মার্কেটের দ্বিতীয় তলার ২নম্বর ঘর। র্দীঘদিন ধরে নিজের অফিস হিসেবে ব্যবহারের জন্য পৌরসভার কাছ থেকে তিনি লিখিত চুক্তিতে বরাদ্দ নিয়েছিলেন। চলতি মাসের ১৩ তারিখে সেই ঘর তিনি আবার লিটন কুমার দাস নামে অন্য ব্যক্তির কাছে বিক্রি করেছেন। মজনু বলেন, ‘বিক্রির পর থেকে ওই মার্কেটের ঘরের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই। সেখান থেকে সম্প্রতি র্যাব বিপুল পরিমাণ মদ উদ্ধারের পর বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যমের খবরে আমার নাম এসেছে।

যা খুবই অপ্রত্যাশিত। কিন্তু র্যাব পরবর্তি সময়ে থানায় যে মাদক মামলা করেছেন তাতে আমার কোন নাম নেই। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি আরো জানান, আমি পৌরসভার ৫নম্বর ওর্য়াডের কমিশনার। শহর জুড়ে আমার সুনাম রয়েছে। ফলে সাধারন মানুষেরা প্রতিনিধি হিসেবে আমাকে বারবার নির্বাচিত করেছেন। আমি সর্বদা সাধারন মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু একটি মহল শত্রুতা বসত সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। সমাজ থেকে মাদক নির্মূলে একজন জন প্রতিনিধি হিসেবে পুলিশ প্রশাসনকে সর্বাত্নক সহযোগিতা করে আসছি। আগামীতেও আমার সেই প্রচেষ্টা অব্যহত থাকবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আপনার মতামত লিখুন :