প্রবাসীদের পক্ষে দাঁড়ালেন. ডক্টর ফয়জুল হক

প্রবাসীদের ভালোবাসার মুখ ড. ফয়জুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদননিজস্ব প্রতিবেদন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:৫৩ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২১

গত ১২ জুলাই বাংলাদেশ টাইম রাত ৯টায়

মালয়েশিয়ান প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানকল্পে অনলাইনের জনপ্রিয় ফেস দ্যা পিপল এর পেইজে জুমের মাধ্যমে টকশো অনুষ্ঠিত হয়। ফেস দ্যা পিপল এর পরিচালক জনাব সাইফুর রহমান সাগরের পরিচালনায় টকশোতে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আওয়ামিলীগ (একাংশ)আহবায়ক জনাব রেজাউল করিম রেজা, বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির ডাইরেক্টর জনাব মাহবুব আলম শাহ, ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়ার পোষ্ট ডক্টোরাল ফেলো, ড. ফয়জুল হক, বিশিষ্ট সাংবাদিক জনাব মোস্তফা ফিরোজ ও রেমিট্যান্স যোদ্ধা জনাব জামাল উদ্দিন।

আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রবাসীদের নানা সমস্যার কথা  বর্ণনা করেন ড. ফয়জুল হক সহ অন্যরা।শুরুতেই ড. ফয়জুল হক করোনাকালীন বাংলাদেশীদের বিভিন্ন দুঃখ দুর্দশার কথা বর্ণন করেন। তিনি বলেন আমার ভাইয়েরা আজ এক কঠিন সময় অতিক্রম করছে। চাকরি হারিয়ে, পাসর্পোট ভিসার সমস্যা নিয়ে বনে জঙ্গলে ঘুরে বেড়াচ্ছে। বাংলাদেশের পরিবারের কথা চিন্তা করে প্রবাসীরা চরম কষ্টের মধ্যেও না খেয়ে বাড়ীর জন্য টাকা পাঠাচ্ছে। করোনার মধ্যেও নিয়মিত তারা গ্রেফতার আতংকে দিনাতিপাত করছেন। দীর্ঘ দিন পর্যন্ত পাসর্পোট হাতে না পাওয়ায় আজ তাদের কাছে বৈধ ভিসা পর্যন্ত নেই, যে কারনে প্রতিদিন এক অজানা আতংকে দিন যাচ্ছে প্রবাসীদের।

ড. ফয়জুল আরো বলেন, প্রবাসীরা বাংলাদেশের রেমিট্যান্স যোদ্ধা, তাঁদের টাকায় বাংলাদেশের উন্নয়ন হচ্ছে, অসহায় পরিবারগুলো চলছে, অথচ আজ প্রবাসীরা পদে পদে উপেক্ষিত। তারা পাসপোর্ট , ডকুমেন্ট বিড়ম্বনার স্বীকার আবার দালালদের কারণে এম্বাসিরও সঠিক সেবা নিতে পারছেননা। এম্বাসির  পক্ষ থেকে করোনা মহামারির শুরুতে সামান্য কিছু সাহায্য করলেও বর্তমানে কোন প্রকার সহযোগীতা নেই। শ্রমিকরা অনেকেই আজ না খেয়ে দিন যাপন করছেন। যা সত্যিই উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে।

অনুষ্ঠানের অন্যতম আলোচক
জনাব রেজাউল করিম রেজা বলেন, প্রবাসীর সঠিক সময়ে দেশে যায়না। ভিসা ছাড়াই মালয়েশিয়া থাকতে পছন্দ করে। তারা বনে জঙ্গলেই থাকতে চায়। তাই তারাতো জঙ্গলেই থাকবে! তিনি এও বলেন যে,প্রবাসী শ্রমিকরা মালয়েশিয়ার বুকিতবিংতান এর বিভিন্ন বার, ক্লাবে মদ ও নারীর পিছনে টাকা ব্যায় করে বেড়ায়।যে কারনে সময়মত হাতে টাকা না থাকায় ভিসা রেনিউ করতে পারেনা। যা সকল প্রবাসীদের মনে চরম ব্যাথা ও ক্ষোভের জন্ম দেয়।
ড. ফয়জুল উপস্থিত ভাবেই তার এ বক্তব্যের প্রতিবাদ করে বলেন, বুকিত বিংতানে আমাদের সাধারন শ্রমিকরা যায়না, যায় হচ্ছে আপনার, আমার মতো টাই, ব্লেজার পড়া মানুষগুলো।

ড. ফয়জুল বলেন জঙ্গলে থাকতে আমার দেশের ভাইয়েরা আসেনি, প্রবাসী শ্রমিকদের যথাযথ মুল্যায়ন করতে হবে। দেশ বিনির্মাণে তাদের ভূমিকার কথা স্বীকার করতে হবে।
টকশো পরবর্তী সময়ে মালয়েশিয়ার সমগ্র প্রবাসীদের মুখে মুখে এখন প্রবাসীদের প্রিয় মুখ ড. ফয়জুল হক।

আপনার মতামত লিখুন :