সরকারের নজরে সংবাদকর্মী মনির হোসেনের ফেইসবুক স্ট্যাটাস

ভয়েস অফ ইনসাফভয়েস অফ ইনসাফ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:১৫ পিএম, ০২ জুন ২০২১

কয়েকদিন মাত্র গত হলো, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে পানিবন্দি হয়ে পরেছিলো দক্ষিন বঙ্গের বেশকিছু উপজেলার মানুষ। বিপর্যস্ত হয়ে পরেছিল মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। এসব উপজেলার মধ্যে অন্যতম হলো বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলা। বাকেরগঞ্জ উপজেলার শেষপ্রান্ত বিষখাঁলী নদীর তীর ঘেঁষে অবস্থিত। শেষপ্রান্তে থাকা নিয়ামতি ইউনিয়নের মানুষের ক্ষয়ক্ষতির সংখ্যা সব চেয়ে বেশি। বিশেষ করে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ১৪ নং নিয়ামতি ইউনিয়নের বাণিজ্যিক বন্দর হিসেবে পরিচিত নিয়ামতি বন্দর বাজার। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের জীবন-জীবিকার সাথে জড়িত এই বাজার পুরোটাই প্লাবিত হয়েছিলো বিষখালী নদীর পানিতে। ফলে একদিকে যেভাবে সাধারন মানুষ তাদের নিজেদের প্রয়োজনীয় প্রয়োজন মেটাতে পারেনি অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা বিশেষ ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। বিষয়টি অন্যান্য সংবাদকর্মীদের মত দৃষ্টিগোচর হয় সংবাদকর্মী মনির হোসেনের। তিনি সেখানকার সাধারন মানুষের সাথে কথা বলে তাদের দাবির প্রেক্ষিতে তার নিজস্ব ফেইসবুক পেইজে ভিডিওচিত্রসহ একটি স্ট্যাটাস দেন।

নিয়ামতি বন্দরকে ঘিরে বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রসঙ্গে দেয়া সংবাদকর্মী মনির হোসেনের স্ট্যাটাস সরকারের বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রকল্প নিয়ে কাজ করা সংশ্লিষ্ট দপ্তরের নজরে আসে। এগিয়ে আসেন সমাজবিজ্ঞানী ও এলজিইডির অন্যতম কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম ফিরুজী সাহেব। জনাব ফিরুজী ইতিমধ্যে এই বিষয় নিয়ে কাজ শুরু করেছেন বলে জানা যায়। এ বিষয়ে সংবাদকর্মী মনির হোসেনকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, এলজিইডির অন্যতম কর্মকর্তা জনাব নজরুল ইসলাম ফিরুজীর সাথে তার নিয়মিত কথা হচ্ছে। নিয়ামতি বাসির প্রাণের দাবী বেড়িবাঁধ নির্মাণের প্রকল্পটির আবেদনপত্র ইতিমধ্যে নির্বাহী প্রকৌশলী বরিশাল পওর বিভাগ মহাপরিচালক বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, অতিরিক্ত মাহা-পরিচালক পশ্চিম বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, প্রধান প্রকৌশলী (দক্ষিণাঞ্চল) বাপাউবো, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বরিশাল দপ্তর সার্কেলে আবেদন পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, নিয়ামতি বাজারের নৌ থানার দক্ষিণ পার্শ্ব দিয়ে পোল্ডার নং ৪১/৬এ সাইড বেড়িবাঁধ বিষখালী নদীর পাড় হতে মদনের খালের ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ২ কিঃ মিঃ এরিয়া ধরে বাস্তবায়নের লক্ষে একটি আবেদন পাঠানো হয়েছে। এবিষয়ে নিয়ামতি ইউনিয়নের জনগণের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, সংবাদকর্মী মনির হোসেনের এই উদ্যোগটি যদি সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাস্তবায়িত হয় তবে সেটা নিয়ামতি বাসীর জন্য একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।

আপনার মতামত লিখুন :